সিদ্ধিরগঞ্জে দু’টি প্রতিষ্ঠানে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান

রূপগঞ্জ প্রতিনিধি
সিদ্ধিরগঞ্জে একটি অনুমোদনহীন ফিশফিড তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়ে ২১০ টন মাছের খাবার জব্দ ও ২ জনকে আটক কারাদন্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। সিলগালা করা হয়েছে কারখানাটি। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে র‌্যাব-১১ ও প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তর যৌথভাবে সানারপাড় কান্দাপাড় এলাকায় এ অভিযান চালায়। সাজাপ্রাপ্তরা হলো, কারখানা মালিক মিজানুর রহমান। তাকে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। মিজানুর রহমান নোয়াখালী জেলা সদরের গোপিনাথপুর এলাকার ইউনুছ মিয়ার ছেলে। কারখানার কর্মচারী এরশাদ মিয়াকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারদন্ড। এরশাদ মিয়া নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া থানার নোহাট্টা এলাকার নূরুল ইসলামের ছেলে। ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম জানান, ক্ষতিকারক এনবিএম আমদানী সরকারি ভাবে নিষিদ্ধ। ট্রেনারী বর্জ্য দিয়ে ফিশফিড (মাছের খাবার) তৈরি করা হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তারপরও এই কারখানায় গোপনে ফিশফিড তৈরি করা হচ্ছিল। যার ফলে মানুষ ক্যান্সারসহ নানাবিধ জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। অভিযানে উপস্থিত ছিলেন, র‌্যাব-১১ এর সিপিএসপি কোম্পানি কমান্ডার মেজর নাজমুছ সাকিব, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন চৌধুরী ও প্রাণি সম্পদ অধিদপ্তরের ঢাকা জেলা অফিসার ডা. মোহাম্মদ এমদাদুল হক তালুকদার। একই আদালত বিকেল ৪ টায় একই এলাকায় মেসার্স শহিদ সোপ ফ্যাক্টরীতে অভিযান চালিয়ে কাপড় ধোয়ার ৫০০ কেজি ডিটারজেন্ট পাউডার জব্দ ও ২ লাখ টাকা জরিমানা করেছে। কাগজপত্র ছাড়াই কারখানাটিতে কাপড় ধোয়ার সাবান ও পাউডার তৈরি করা হচ্ছে। ১৫ দিনের মধ্যে লাইসেন্স ও প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্র ঠিক করার সময় দেয়া হয়েছে বলে জানান ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *