কিছু অসাধু লোক ছেলে ধরা গুজব ছড়িয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে: পুলিশ সুপার

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোঃ হারুন অর রশিদ সাধারণ জনগণের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা গুজবে কান দিবেন না। বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য এমন গুজব ছড়ানো হচ্ছে। গতকাল রবিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন। তিনি বলেন, গত ২/৩ দিন যাবৎ লক্ষ্য করছি যে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ, ফতুল্লা, বন্দর সহ বিভিন্ন এলাকায় ছেলেধরা গুজব সন্দেহে লোকজনকে মারধর করে হত্যা করা হচ্ছে। একটি গোষ্ঠি ছেলেধরা গুজব ছড়িয়ে আইন শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। সে কারনেই বিভিন্ন থানায় আমরা মাইকিং এর ব্যবস্থা করেছি। এমন গুজবে পড়ে আপনারা আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না। যদি এমন কাউকে আপনাদের সন্দেহ হয় তাহলে সাথে সাথে পুলিশকে খবর দিন। পুলিশ ব্যবস্থা গ্রহন করবে। বিশেষ করে সিদ্ধিরগঞ্জে ছেলেধরা সন্দেহে ৩০ বছর বয়সি একটি যুবককে ঐ এলাকার জনগণ পিটিয়ে হত্যা করেছে। এর সাথে যারা যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। একটি মহিলাকেও তারা মারধর করেছে। ফতুল্লায়ও আজ সকালে এ ধরনের একটি ঘটনা ঘটেছে। ছেলেধরা গুজবে বিভ্রান্ত হবার কোন কারন নেই। কারন আমি মনে করি এটা নিছক একটা গুজব ছাড়া আর কিছুই নয়। সিদ্ধিরগঞ্জের দুটি ঘঁনায় ১৪ জনকে আটক করা হয়েছে। যারা ছেলেটিকে মারধর করেছে তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। অযথা কাউকে ছেলেধরা সন্দেহে মারধর করবেন না, নিজের ঘাঁড়ে মামলা নিবেন না। মাদকের ব্যাপারে তিনি বলেন, আমরা বার বার বলছি যারা মাদক ব্যবসা করে, ভূমিদস্যূতায় জড়িত তাদের তথ্য আমাদেরকে দিন। আমরা তাদের বিরুদ্ধে এ্যাকশনে যাবো। যারা যুব সমাজকে ধ্বংস করতে চায় তাদেকে কোন ছাড় দেওয়া হবেনা সে যেই হোক। এসময় হকার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ফুটপাত হচ্ছে জনগণের চলাচলের জন্য। কেউ সেখানে দোকান বসাবে, চাঁদা তুলবে তা হবেনা। ফুটপাতে কোন দোকান বসবেনা। যদি কেউ দোকান বসানোর চেষ্টা করে তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কিছু অসাধু লোক ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে। আমি তাদেরকে বলবো, অযথা চেষ্টা করবেন না, পরিনাম ভালো হবেনা। এসময় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মামুন, সিনিয়র সহকারী এসপি আবু সালেহ, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম, ফতুল্লার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আসলাম, ডিবি কর্মকর্তা এনাম হোসেন, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার তদন্ত ওসি মোঃ সেলিম মিয়া সহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *