না’গঞ্জে ডেঙ্গু প্রতিরোধ ফটোসেশনেই সীমাবদ্ধ !

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
সারা দেশের ন্যায় নারায়ণগঞ্জেও যখন ডেঙ্গু নিয়ে সাধারন মানুষ ভীত হয়ে পরেছে। তখন ডেঙ্গু নিধনের নামে নারায়ণগঞ্জের জনপ্রতিনিধিরা ফটোসেশনেই সীমাবদ্ধ রেখেছেন নিজেদের কর্মকান্ড। দৃশ্যমান কোন অগ্রগতি দেখতে পারছে না সাধারন মানুষ। এ নিয়ে সাধারন মানুষের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এদিকে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হচ্ছে সাধারন মানুষ, ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জে বেশ কয়েক জনের মৃত্যুও হয়েছে। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনায় সাধারন মানুষের মধ্যে আরো বেশী ভীতি ছড়িয়েছে। অন্যদিকে জনপ্রতিনিধিরা মশা নিধন করতে ফগার মেশিন নিয়ে ফটোসেশন করলেও ডেঙ্গু নিধনে দৃশ্যমান কোন অগ্রগতি নেই। ফটোতেই ফগার মেশিন দেখা গেলেও প্রকাশ্যে এই মেশিনের ব্যবহার দেখা যাচ্ছে না এমন অভিযোগ সাধারন মানুষের। সংসদ সদস্য, সিটি করপোরেশন,পৌর সভার মেয়র ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের ডেঙ্গু প্রতিরোধে যেমন কাজ করার কথা রয়েছে তা তারা করছে না এমন অভিযোগ সাধারন মানুষের। তবে সচেতন মহলের মতে, ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধিদের আরো বেশী তৎপর হওয়া প্রয়োজন। সূত্র জানায়, বেশ কয়েক দিন ধরে জেলা পরিষদ, উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদগুলো মশক নিধন সপ্তাহ ঘটা করে পালন করে। কিন্তু এই মেশিনের প্রকাশ্যে ব্যবহার না হওয়ায় সাধারন মানুষের মধ্যে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। সংসদ সদস্যরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের মাঝে মশা নিধনের ফগার মেশিন হস্তান্তর করলেও এর ব্যবহার এখনো দৃশ্যমান হয়নি। ফলে ডেঙ্গু নিয়ে সাধারন মানুষের মধ্যে আতঙ্ক থেকেই যাচ্ছে। এছাড়া প্রতিদিনই ডেঙ্গু জ¦রে আক্রান্ত হচ্ছে সাধারন মানুষ। ইতোমধ্যে একজন শিক্ষক সহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। একজন সহকারী পুলিশ সুপারসহ আক্রান্ত হয়েছে প্রায় শতাধিক মানুষ। সচেতন মহলের মতে, ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধিদের ফটোসেশন বাদ দিয়ে সাধারন মানুষের পাশে দাঁড়ানো প্রয়োজন। সংসদ সদস্য,মেয়র,চেয়ারম্যানদের ডেঙ্গু প্রতিরোধে আরো বেশী তৎপর হওয়া জরুরী। উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদে গত ২৫ থেকে ৩১ জুলাই মশক নিধন সপ্তাহ পালন করে। এ উপলক্ষে র‌্যালী, সচেতনা মূলক আলোচনা সভাসহ বিভিন্ন কর্মকান্ড করেছে। এছাড়া সংসদ সদস্যদের মধ্যেমে ডেঙ্গু নিধনে ফগার মেশিনও বিতরণ করতে দেখা গেছে।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *