ডেঙ্গু আজ জাতির দূর্যোগ : আনোয়ার

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
বঙ্গবন্ধু ব্যাতিত বাংলাদেশে স্বাধীন হতো না। বাঙালির জাতির পিতা শেখ মুজিবের জন্যই এদেশের মানুষের মুক্তি এসেছে। জাতির জনকের কন্যার জন্য এখন দেশে অর্থনৈতিক মুক্তি এসেছে। গতকাল শুক্রবার জুম’আ নামাজের পর শহরের জল্লারপাড়া আমহাট্টা জামে মসজিদের সামনে ১৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের জাতীয় শোক দিবস উদযাপন পরিষদের আয়োজিত আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওই কথা বলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন। তিনি বলেন, দেশকে ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র মুক্ত ও দূর্নীতিমুক্ত করতে জাতির জনকের সুযোগ্য কন্যার বিকল্প নেই। আমরা যারা রাজনীতি করি তাদেরকে জাতির জনকের ও তার কন্যার নীতিকে অনুসরন মানুষের কল্যানে এগিয়ে আসতে হবে। কাজ করতে হবে মানুষের জন্য। ডেঙ্গু আজ জাতির দুর্যোগ, আমাদের সকলকে এই দুর্যোগে এগিয়ে এসে মানুষের সেবায় নিজেদের নিয়োজিত করতে হবে। জল্লারপাড়া আমহাট্টার জাতীয় শোক দিবস উদযাপন পরিষদ নারায়ণগঞ্জের সদস্য সচিব তাহের উদ্দিন আহমেদ সানির সঞ্চালনায় জাতীয় শোক দিবস উদযাপন পরিষদ জল্লারপাড়া আমহাট্টার আহবায়ক মো. ওয়াহেদুজ্জামানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আব্দুল কাদির, যুগ্ম সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর আলম, তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক খালিদ হাসান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ইসহাক মিয়া, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি শেখ হায়দার আলী পুতুল, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক কামাল দেওয়ান, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক আতিকুজ্জামান সোহেল, সদস্য এবিএম সোহরাব হোসেন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী সভাপতি হাজী নুরউদ্দিন আহম্মেদ প্রমূখ। এছাড়াও উপস্থিত ছেলেন, ১৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনিস আহমেদ, ১৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আসাদ উল¬াহ, উদযাপন কমিটির উপদেষ্টা মোবারক হোসেন, সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সেলিম হাসান দিনার, বাংলাদেশ ইয়ার্ণ মার্চেন্টস এসোসিয়েশনের পরিচালক ফয়সাল আহম্মেদ দোলন, হাজীগঞ্জ আওয়ামী লীগ নেতা নূর আহম্মেদ ফয়সাল, আফতাব আহম্মেদ, জাহাঙ্গীর হোসেন খোকা, রাহাত মিয়া, হাবিবুর রহমান শ্যামল, আমির হোসেন বাদল, আবুল কাশেম রিবন, মোসাদ্দেক আহম্মেদ অপু প্রমূখ।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *