টার্গেট বিএনপি নেতাদের পুত্ররা

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি দলটি উপর ক্ষমতাসীনদের আক্রোশ এখনো কমেনি তার প্রমাণ এখনো পাওয়া যাচ্ছে। যদিও আগের তুলনায় হামলা-মামলার চিত্র অনেকটাই কমেছে। এরপরও বিএনপির যেসব নেতাদের কাবু করা সম্ভব হচ্ছেনা তাদের পুত্রদের হেনস্তা করে যাচ্ছে। এর ফলে নানা ইস্যুতে এই দলটির নেতাদের পুত্রদ্বয়কে নানাভাবে মামলা দিয়ে হেনস্তা করা হচ্ছে। যেকারণে বিএনপির হামলা-মামলা আতঙ্ক ফের উদয় হচ্ছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বিএনপি দলটির নেতাদের কাবু করতে তাদের স্বজনদের হেনস্তা করছেন। বিএনপি ফের ক্ষমতাচূত হলেও যেসব নেতারা এখনো ক্ষমতাসীনদের পথের কাটা হয়ে আছে অথবা তাদের বশে আসেনি তাদেরকে মূলত টার্গেট করা হচ্ছে। সেই টার্গেটে এই দলটির নেতাদের পুত্রদ্বয় হেনস্তার শিকার হচ্ছে। ১৮ জুলাই নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় সরকার দলীয় এক এমপির গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এতে গ্রেপ্তার ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ আসনে বিএনপির সাবেক এমপি মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিনের ছেলে ও ৫নং কাউন্সিলর গোলাম মুহাম্মদ সাদরিল সহ ১০জনকে গ্রেফতার দেখিয়ে রিমান্ড আবেদন করা হয়। পরে তিনি জামিনে মুক্তিও পান। সাদরিলের ঘনিষ্ঠজনেরা জানান, সাদরিলের বাবা বিএনপি দলীয় সাবেক এমপি। হয়তো সে কারণেও কোন আক্রোশ থাকতে পারে। এর আগে ২৪ জানুয়ারী নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানের ছেলে শাহরিয়ারকে তুলে নেওয়ার পর ছেড়ে দিয়েছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। নারায়ণগঞ্জ ডিবির একজন কর্মকর্তা জানান, সাখাওয়াতের ছেলে শাহরিয়ারকে আটক করা হয়েছিল। পরে ছেড়ে দেওয়া হয়। এরও আগে গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর টানা ১২ঘণ্টা আটক থাকার পর মুক্তি পান মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালের ছেলে নাহিন মোস্তাবা সোহান। নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সোহানকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেওয়া হবে। ওই ঘটনার পর সদর-বন্দর আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোননীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী এসএম আকরাম জানান, এটিএম কামাল আমার নির্বাচনী পরিচালনা কমিটির প্রধান। আর তাই তাকে না পেয়ে তার ছেলেকে আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ। মূলত এটিএম কামাল সহ বিএনপির নেতাকর্মীরা যাতে নির্বাচনী প্রচারণায় না আসতে পারে সেইজন্য এ ধরনের গ্রেফতার অভিযান চালানো হচ্ছে। সূত্র বলছে, ক্ষমতাসীন দলটি দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকলেও বিএনপি ত্যাগী ও জনপ্রিয় নেতাদের অনেকে এখনো তাদের পথের কাটা হয়ে রয়েছে। এদেরকে কোনভাবেই কাবু করা যাচ্ছেনা। হামলা, মামলা উপেক্ষা করে এই ত্যাগী নেতারা এগিয়ে যাচ্ছেন। যেকারণে তাদের দমানে স্বজনদের হেনস্তা করা হচ্ছে।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *