News

যৌন নির্যাতনের শিকার মুন্নি দেশে আসতে চায়

ডান্ডিবার্তা | ১৯ আগস্ট, ২০১৯ | ৮:২৪ পূর্বাহ্ণ

সোনারগাঁ প্রতিনিধি
সোনাগাঁ উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের সিংলাব গ্রামের মুন্নি আক্তার গৃহকর্মী হিসাবে সৌদী আরবে গিয়ে পাশবিক যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যপারে গতকাল রবিবার মুন্নির বাবা সিরাজুল ইসলাম নির্যাতিত মেয়েকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে লিখিত আবেদন করেছেন। আবেদনে তিনি উল্লেখ করেন তার মেয়ে মুন্নি আক্তার বাংলাদেশ সরকার ও সৌদি আরবের সব নিয়ম কানুন মেনে এবং প্রশিক্ষণ নিয়ে গৃহকর্মী হিসাবে বৈধভাবে গত ২ জুন সৌদি আরবের মদিনায় গমন করে। তার পাসপোর্ট নম্বর-বি পি ০০১২৫০৪, ভিসা নম্বর- ৬০৫৯৩৮১৬২৮ ও তারিখ ৩০.০৪.২০১৯। দরিদ্র পরিবারে সচ্ছলতা ফিরাতে আশা নিয়ে তার মেয়ে সুদূর সৌদী আরবে একটি পরিবারে গৃহকর্মী হিসাবে যোগদান করে। বিধিবাম যোগদানের কিছুদিনের মধ্যে মেয়ে মোবাইলে ফোন করে পরিবারকে জানায় গৃহকর্তা ও তার ছেলে কতৃক তার উপর পাশবিক নির্যাতন চালানোর খবর। মুন্নি তার বাবা মাকে জানায় তার উপর প্রথমে শারিরিক নির্যাতন চালায় পরে গৃহকর্তা এবং তার যুবক ছেলে পালাক্রমে যৌন নির্যাতন (গণধর্ষণ) চালায়। সহ্য করতে না পেরে বাধা দিলে জলন্ত সিগারেটের আগুন দিয়ে শরিরের বিভিন্ন স্পর্ষকাতর স্থানে ছ্যাকা দিয়ে গভীর ক্ষত তৈরি করে। কান্নাজরিত কন্ঠে বাবা সিরাজুল ইসলাম বলেন আমার আদরের ধন মেয়েকে জীবিত অবস্থায় সৌদী আরব থেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে মিনতি করছি। এ ব্যাপারে সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আঞ্জন কুমার সরকার বলেন, লিখিত আবেদন পত্র পেয়েছি আমার মাধ্যমে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দ্রুত পাঠানোর ব্যবস্থা করছি।