গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে আইভী পন্থীদের কর্মসূচি নেই

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
বিগত কয়েকটি কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগে বিভক্তি পরিলক্ষিত হচ্ছে। সেই সাথে ২০১৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে গত বুধবার অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা নিয়েও নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগে বিভক্তি দেখা গিয়েছিল। শেষ পর্যন্ত জেলা আওয়ামী লীগের একটি অংশের বয়কটের মধ্যে দিয়েই অনুষ্ঠিত হয়েছে ওই আলোচনা সভা। তবে ওই অংশটি আলোচনা সভা বয়কট করলেও গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে তাদের অনীহা পরিলক্ষিত হচ্ছে। কারণ এখন পর্যন্ত ওই পক্ষটির উদ্যোগে কোন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়নি। সেই সাথে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে পালন করা হবে কিনা সেটাও জানা নেই। জানা যায়, গত বুধবার ছিল ২১ আগস্ট। ২০০৪ সালের এই দিনে ঢাকার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগের সমাবেশে ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা ও হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছিল হরকাতুল জিহাদের একদল জঙ্গি। যে সমাবেশের প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের দলীয় প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শেষ হবার সাথে সাথে হঠাৎ করে বিকট শব্দ হয়। এভাবে দফায়-দফায় বিস্ফোরণের শব্দে পুরো এলাকা কেঁপে উঠেছিল। সমাবেশে উপস্থিত আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা প্রথমে বুঝতে পারেননি যে এটি ছিল গ্রেনেড হামলা। অনেকেই ভেবেছিলেন বোমা হামলা। কিন্তু কিছুক্ষণের মধ্যেই তারা ঘটনার ভয়াবহতা সম্পর্কে আঁচ করেছিলেন। ঐ গ্রেনেড হামলায় ২৪জন নিহত এবং আহত হয়েছিলেন অনেকেই। এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই একটি অনলাইনকে জানিয়েছিলেন, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আওয়ামী লীগের ‘সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও দুর্নীতিবিরোধী’ শান্তিপূর্ণ সমাবেশে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী, আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। এসময় আওয়ামীলীগের অনেক নেতাকর্মী মারা যায়। তাই ওই দিন শহীদদের স্মরণ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। যার ধারাকবাহিকতায় ওই গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে গত ২১ আগস্ট বুধবার বিকেল ৩টায় চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এক আলোচনা সভার আয়োজন করেছিল নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ। এই আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলোসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হয়েছিলেন। তবে সেখানে উপস্থিত ছিলেন না নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী সহ তার সমর্থিত জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পদধারী নেতারা। তাদের বয়কটের মধ্য দিয়েই নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের পদধারী কয়েকজন নেতার উপস্থিতিতে ওই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী সহ তার সমর্থিত জেলা আওয়ামী লীগের পদধারী বিভিন্ন নেতারা ও আলোচনা সভায় অনুপস্থিত থাকলেও তারা আলাদাভাবে কোন কর্মসূচি পালন করেন নি। সেই সাথে পালন করবেন কিনা সেটাও তৃণমূলের নেতাকর্মীদের জানা নেই। মূলত তাদের অনীহার মধ্য দিয়েই কোন কর্মসূচি পালন ছাড়াই এবারের ২১ আগস্ট অতিবাহিত হচ্ছে। সেই সাথে তাদের এই অনীহায় তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মাঝে নানা কানাঘুঁষা শুরু হয়েছে।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *