৬ষ্ঠ বারও ঢাকা রেঞ্জে শ্রষ্ঠে এসপি হারুন

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

এবার ৬ষ্ঠ বাররে মতো ঢাকা রেঞ্জে শ্রেষ্ট পুলশি সুপার উপাধি লাভ করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলশি সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম(বার), পিপিএম(বার)।  আজ সোমবার সকাল ১০ টায় ঢাকা রেঞ্জ এর সম্মেলন কক্ষে ২০১৯ সালের জুলাই মাসের মাসিক  অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করনে ঢাকা রেঞ্জ এর ডিআইজি হাবিবুর রহমান, বিপিএম(বার), পিপিএম(বার)। উক্ত সভায় ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ পুইলশ সুপার হিসাবে নির্বাচিত হন নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম(বার), পিপিএম(বার)।  সভা সূত্র জানায়, মাদক উদ্ধার, মামলার রহস্য উদঘাটন, ওয়ারেন্ট তামিল, হকার উচ্ছেদ, শিল্প এলাকায় শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষাসহ নারায়ণগঞ্জ জেলার র্সাবিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিত সন্তোষজনক হওয়ায় র্সবসম্মতিক্রমে এসপি মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম(বার), পিপিএম(বার)’কে ২০১৯ সালের জুলাই মাসের শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার হিসাবে মনোনীত করা হয়। উল্লখ্যে, ইতিপূর্বে নারায়ণগঞ্জ এসপি হারুন নারায়ণগঞ্জ জেলায় যোগদানের ২০১৮ সালের ডিসেম্বর-ও ১৯ সালের জানুয়ারি-ফব্রেুয়ারি মাসের অপরাধ সভায়ও পরপর তিন বার ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার নির্বাচিত হয়েছিলেন। এ নিয়ে ধারাবাহিকতা ধরে রেখে মে-জুন এবং এইবার জুলাই-২০১৯ মাসে একটানা পরপর তিন বারসহ র্সবমোট অদ্যবধি ৬ষ্ঠ বারের মতো ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ এসপি উপাধি লাভ করলেন। প্রসঙ্গত, এসপি হারুন পুলিশের র্সবোচ্চ রাষ্টীয় সম্মান হিসেবে ৩ বার বিপিএম ও ২ বার পিপিএস পদক পয়েছেনে। নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার  মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম(বার), পিপিএম(বার)। অত্র জেলায় যোগদানের পর থেকে র্ভমিদসু্যদের গ্রেফতার বড় বড় মাদক কারবারীদরে গ্রেফতার সহ মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা, জঙ্গীবাদ দমন, হকার উচ্ছেদ, রাস্তা দখল মুক্ত করা, প্রভাবশালীদের হাত থেক ফ্লাট মুক্ত করে প্রকৃত মালিকের নিকট হস্তান্তর, এতিমদের সম্পত্তি ও মিলকারখানা ফিরিয়ে দেয়াসহ নানা ধরণের জনসেবা মূলক কাজ করে র্সবমহলে প্রসংশিত হন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, বিপিএম(বার), পিপিএম(বার)। ইহা ছাড়াও প্রত্যেক সংসদ সদস্যদের এলাকায় মাদক, জঙ্গী বিরোধী কমিউনিটি সমাবেশ করে এবং সংসদ সদস্য একাদশ বনাম পুলিশ সুপার একাদশ এর মধ্যকার প্রীতি ফুটবল ম্যাচের আয়োজন করে সবার কাছে সমাদৃত হন এসপি হারুন।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *