প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনে প্রস্তুত নয় জেলা বিএনপির

ডান্ডিবার্তারিপোর্ট
দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতার বাইরে থাকায় নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি একটি নিস্ক্রীয় সংগঠনের পরিণত হয়েছে। রাজপথের কোনো আন্দোলন সংগ্রামেই তাদের জোড়ালো কোন ভূমিকা লক্ষ্য করা যায়নি। পুলিশের হামলা মামলার ভয়ে শহরের অলিগলিতেই তাদের সীমাবদ্ধ থাকতে হয়। কোন কোন সময় অলি গলিতেও তারা কর্মসূচি পালনের সুযোগ পান না। যার ধারাবাহিকতায় এবার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন উপলক্ষ্যেও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির প্রস্তুতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। মহানগর বিএনপির প্রস্তুতি সভা হলেও এখন পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কোন খবর পাওয়া যায়নি। সূত্র বলছে, আগামী ১ সেপ্টেম্বর বিএনপির ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এ উপলক্ষে সারাদেশে র‌্যালিসহ দু’দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় বিএনপি। গত ১৯ আগস্ট রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথসভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন ১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় র‌্যালি করা হবে। সারাদেশে জেলা-মহানগর ও উপজেলায়ও এ কর্মসূচি পালন করা হবে। পরদিন কেন্দ্রের আয়োজনে ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে হবে আলোচনা সভা। তিনি আরও জানিয়েছিলেন দলের ৪১ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে দেশের জনপ্রিয় নেত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ‘অন্যায়ভাবে আটকে রাখার’ বিষয়টিও সামনে আনতে চান তারা। তার আশু মুক্তি দাবিটি জোরালো করতে চান তিনি। তবে কেন্দ্রীয় বিএনপির এই নির্দেশনা অনুযায়ী প্রস্তুত নয় নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতারা। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে তাদের তেমন একটা আগ্রহ দেখা যাচ্ছে না। এর আগের বার সংসদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে কিছুটা আগ্রহ পরিলক্ষিত হলেও এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জেলা বিএনপিকে একেবারেই নিরব ভূমিকায় থাকতে দেখা যাচ্ছে। যদিও প্রতিবার্ষিকীর দিন নাম মাত্র র‌্যালী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে মনে করছেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা। এদিকে গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরবর্তী সময়ে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি নেতাদের তেমন একটা মামলা হামলার মুখোমুখি হতে হচ্ছে না। সেই সাথে ক্ষমতাসীনদের চোখ রাঙানিও আগের চেয়ে অনেক কমে গেছে। ফলে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা নির্বাচন পরবর্তী সময়ে খোশ মেজাজেই রয়েছেন। তবে এই খোশ মেজাজে থাকাবস্থায়ও দলীয় কর্মসূচিতে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদের সক্রিয় অংশগ্রহণের দেখা মিলছে না। এখনও সেই মামলার আতঙ্ক কাটিয়ে উঠতে পারছেন না তারা। ফলে পূর্বের মতো নামমাত্র কর্মসূচিই পালন করে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপি। দলীয় কর্মসূচিতে নেতাকর্মী সমর্থকদের অংশগ্রহণ খুবই কম। পাশাপাশি গত ২৩ মার্চ দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান এবং সেক্রেটারী অধ্যাপক মামুন মাহমুদ সহ ২০৫ জনের পূর্ণাঙ্গ কমিটির ঘোষণা দিয়েছেন। এর আগে ২০১৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির ২৬ জনের আংশিক কমিটির ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু এই পূর্ণাঙ্গ কমিটিতেও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির গতি ফিরছে না। দলীয় কর্মসূচির পাশাপাশি এবার তারা জনদাবীতেও তেমন একটা চমক দেখাতে পারছেন না। নেতাকর্মী সমর্থকদের মধ্যে তেমন একটা সাড়া মিলছে না। সেই সাথে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি দীর্ঘদিন ধরে কার্যালয় বিহীন রয়েছে। এই কার্যালয়ের ক্ষেত্রে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আগ্রহ দেখা যাচ্ছে না। তারা বিভিন্ন ঝামেলা এড়াতে শহর কেন্দ্রিক রাজনীতি ছেড়ে গ্রামমুখী রাজনীতির দিকে ঝুঁকছেন তারা।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *