শহরে মহানগর আওয়ামী লীগের শো ডাউন

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের মূল ধারার রাজনীতিতে অন্যান্য কমিটির চেয়ে আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে তুলনামূলক সফল ছিল নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগ। তবে তাকে কিছুটা বেগ পোহাতে হচ্ছিল শামীম ওসমান অনুসারী নেতা কর্মী সমর্থকদের জন্য। কারণ নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি হওয়ার পর থেকেই শামীম ওসমান অনুসারী নেতা কর্মী সমর্থকরা দূরে ছিলেন। মহানগর আওয়ামী লীগের আয়োজিত অনেক কর্মসূচিতেই তারা উপস্থিত থাকতেন না। সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহার সাথে নিজেদেরকে মানিয়ে নিতে পারছিলেন না। তবে এবার শামীম ওসমানের অনুসারী নেতা কর্মী সমর্থকরাও আনোয়ার হোসেনের নেতত্বে ঐক্যবদ্ধ হতে শুরু করেছেন। যার ধারাবাহিকতায় সর্বশেষ মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত শোক র‌্যালীতে হাজির হয়েছিলেন শামীম ওসমানের অনুসারীরা। জানা যায়, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে গতকাল শনিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনসমূহের উদ্যোগে এক শোক র‌্যালীর আয়োজন করা হয়। আর এই র‌্যালীতে ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের উপস্থিত থাকার কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তিনি উপস্থিত না থাকলেও তার সমর্থিত নেতারা বিশাল কর্মী বাহিনী নিয়ে র‌্যালীতে যোগদান করেন। সেই সাথে র‌্যালীটিও বিশাল আকার ধারণ করে। সূত্র বলছে, ২০১৩ সালের ১১ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে তৎকালীন শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহাকে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক করে দুই সদস্যের কমিটি ঘোষণা করেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরবর্তীতে ২০১৫ সালের ২৬ ডিসেম্বর মহানগর আওয়ামীলীগের ৭১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। পরবর্তীতে ২০১৮ সালের ৫ জুন মহানগর আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় দলের ৭১ সদস্যের মধ্যে ৪৩ জনের প্রত্যক্ষ সমর্থনে দলীয় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ১৩ সদস্যকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। দলের ৮ জন সদস্য জেলা কমিটিতে চলে যাওয়ায় ৮ জন নতুন, সাথে আরো ৪টি নতুন পদ যোগ করে ১২টি পদ এবং একজনকে পদোন্নতি দিয়ে ১৩ জন সদস্যকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। আর এই মেয়াদে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগে কোন বিরোধ দেখা যায়নি। এদিকে এর আগে ২০১৭ সালের মে মাসজুড়ে প্রতিটি ওয়ার্ডের কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেয়া হলেও পরবর্তীতে বিভিন্ন জটিলতার কারণে সেটার আর অগ্রগতি লক্ষ্য করা যায়নি। আর এর পিছনে ছিলেন শামীম ওসমানের অনুসারী নেতা কর্মী সমর্থকরা। তাদের কারণেই নেতাকর্মীদের মধ্যে কোন্দলের সৃষ্টি হয়। যা নিয়ে সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহাকে কিছুটা বিব্রত হচ্ছিল। তবে এবার সেই বিরোধকেও কাটিয়ে উঠতে শুরু করেছেন মহানগর আওয়ামী লীগ। শোক র‌্যালীতে শামীম ওসমানের সমর্থিত নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, কাউন্সিলর নাজমুল আলম সজল, আব্দুল করিম বাবু। সেই সাথে সহযোগী সংগঠনের নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজুন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো: জুয়েল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক এহসানুল হক নিপু ও যুকলীগ নেতা জানে আলম বিপ্লব সহ আরও কয়েকজন। আর তাদের উপস্থিতিতে সভাপতি আনোয়ার হোসেনের নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগে ঐক্যের সুর বাজতে শুরু করেছে। ফলে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগ নিয়ে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেলেন সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও অ্যাডভোকেট খোকন সাহা।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *