সবচেয়ে বেশি হাসে যে দেশের মানুষ

‘কোন দেশের মানুষ সবচেয়ে বেশি হাসে?’ এই প্রশ্নের জবাব খুঁজতে যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক বিশ্লেষণ প্রতিষ্ঠান গ্যালাপ ১৪৩টি দেশে একটি জরিপ পরিচালনা করে। দেশগুলোর ১ লাখ ৫১ হাজার সাধারণ মানুষকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, ‘কেমন আছেন আপনি?’, ‘গতকাল কেমন ছিলেন?’, ‘রাগী বা বিমর্ষ ছিলেন?’, ‘কতক্ষণ হেসেছিলেন?’, ‘নতুন কিছু শিখেছেন?’

প্রশ্নগুলোর উত্তর ছিল নানা রকম। এক্ষেত্রে বিশ্বব্যাপী ১০ জনের মধ্যে সাতজন জানিয়েছেন— ‘উপভোগ্য সময় কেটেছে (৭১ শতাংশ), ভালো ঘুম হয়েছে (৭২ শতাংশ), প্রচুর হেসেছি (৭৪ শতাংশ) ও সম্মান পেয়েছি (৮৭ শতাংশ)।’

দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ‘ভালো আছি’ ‍উত্তর মিলেছে দক্ষিণ আমেরিকার প্যারাগুয়েতে। জরিপে ইতিবাচক দিক থেকে সবচেয়ে এগিয়ে দেশটি। এরপর আছে যথাক্রমে পানামা, গুয়াতেমালা, মেক্সিকো, এল সালভাদর, ইন্দোনেশিয়া , হন্ডুরাস, ইকুয়েডর, কোস্টারিকা ও কলম্বিয়া। এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে একমাত্র ইন্দোনেশিয়া স্থান করে নিয়েছে এতে।

আফ্রিকার দেশ নাইজেরিয়ার ১০ জনের মধ্যে ৯ জনই প্রচুর হাসিখুশির মধ্যে থাকার কথা জানিয়েছেন এই জরিপে। শান্তিতে ঘুমানোর দিক দিয়ে এগিয়ে আছে মঙ্গোলিয়া। বিশুদ্ধ অভিজ্ঞতা সমৃদ্ধ পরিপূর্ণ জীবনযাপনের জন্য এল সালভাদর, পানামা ও গুয়াতেমালা এগিয়ে। জাতিসংঘের ওয়ার্ল্ড হ্যাপিনেস রিপোর্টে বিশ্বের সবচেয়ে সুখী দেশের তালিকায় সাত নম্বরে থাকা সুইডেন গ্যালাপের নেতিবাচক অভিজ্ঞতা বেশি এমন তালিকায় হয়েছে চতুর্থ।

নেতিবাচক অভিজ্ঞতার র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষে আছে মধ্য আফ্রিকার দেশ চাঁদ। ২০০৩ সাল থেকে এটি তেল উৎপাদনে সুনাম কুড়ায়। কিন্তু এখন রাজনৈতিক অস্থিরতা ও সহিংসতায় জর্জরিত দেশটি। সেখানে হাজার হাজার পরিবারের মৌলিক সেবা ভেঙে পড়েছে। প্রতি ১০ জনের মধ্যে সাতজনই (৭২ শতাংশ) জানান, গত বছর জীবিকা নির্বাহ করতে হিমশিম খেয়েছেন তারা।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *