আমি মরে গেলে মানুষ যেন কাঁদে

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

প্রভাবশালী সাংসদ শামীম ওসমান বলেছেন, ‘রাজনীতি আমি ব্যবসা বা ধান্ধা হিসেবে নেই নাই; আমি বহুরূপী রাজনীতি করি না। দিনের বেলায় একটা আর রাতের বেলায় আরেকটা না। যা বলব পরিষ্কারভাবে বলব। আমি যখন বিদায় নিবো, মানুষ বলবে তুমি যেও না, এটাই আমার বড় পাওয়া। আগামীবার নির্বাচন আমি নাও করতে পারি। আমার মানুষের জন্য কিছু করতে চাই। আমার লক্ষ্য, আমি মরে গেলে মানুষ যেন কাঁদে।’ গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে তোলারাম কলেজের নবীন বরণ উৎসবে শামীম ওসমান এসব কথা বলেন। স্থানীয় দৈনিকগুলোর সমালোচনা করে শামীম ওসমান বলেন, নারায়ণগঞ্জে কিছু লোকাল পত্রিকা আছে দেওয়ালে ছাপে। পত্রিকা আবার দেওয়ালে ছাপে নাকি? এরা নাকি জামাত, মন্ত্রী-মিনিষ্টারের থেকে পয়সা পায়। আমি এসব পত্রিকা পড়িও না। আমার নাম, আমার বড় ছবি দিয়া নানান নিউজ করে। আমার নামে হেডলাইন দিয়া পত্রিকা চলে, চালাও; আপত্তি নাই। রয়্যালিটি দেও, বিভিন্ন পোজ দিয়ে ছবি দেই। আমারে না দিলেও তোলারাম কলেজের ১০টা গরিব ছাত্রের লেখাপড়ার পয়সা দেও। ব্ল্যাকমেইলিং করে মানুষের কাছে সম্মানিত হতে পারবেন না। মানুষ এই ব্ল্যাকমেইলারদেরকে সামনে না বললেও পিছনে বলে হলুদ সাংবাদিক। এটা একটা সাংবাদিকদের জন্য গালি। আমাকে আক্রমণ করেন,মানুষের দূর্ভোগ নিয়ে খবর করেন। আমরা এতে শ্রদ্ধাশীল হবো, সেটা না করে উল্টাপাল্টা খবর করে। শামীম ওসমান শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আমাকে কিছু ঘটনা চিন্তিত করে তুলেছে। নারায়ণগঞ্জে কিছু কাজ করছি তোমাদের সার্পোট চাই। কিন্তু রাজনীতি করতে হবে এমন না। রাজনীতি করে কারো হাতের হাতিয়ার হইয়ো না। তবে সজাগ থাকো, প্রতিবাদ কইরো। আমি পারি না প্রতিবাদ করতে তুমি তো পারো। তিনি আরো বলেন, আমার তো ফেসবুক নেই কিন্তু শিক্ষার্থী সবারই ফেসবুক আছে। আপনাদের নিয়ে লেখা শুরু করে? আপনে পোলাপানরে স্টুপিড ভাবছেন? এরা আপনার-আমার চেয়ে স্মার্ট অনেক। এরা সবগুলি কিন্তু চিজ একেকটা। ওরা জানে কোথায় টিপ দিলে কোথায় কি হয়। নারায়ণগঞ্জকে সুন্দর করাই তাঁর একমাত্র লক্ষ্য জানিয়ে শামীম ওসমান বলেন, নারায়ণগঞ্জে দায়িত্বশীল ব্যক্তিত্ব ছাড়া আছেন, সাংবাদিক, অন্যান্য দলের রাজনীতিবিদরা সবাইকে অনুরোধ; আসেন, আমরা সবাই মিলে বসি। একা অনেক কিছু পারা যায় না, সবাই মিলে পারা যায়। আশা করি এই আহ্বান তাদের কান পর্যন্ত পৌঁছাবে। আমার এই আহ্বানকে কিন্তু দূর্বলতা ভাইবেন না। যেকোন অন্যায়, অপশক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করার সাহস আমার ছিল, আছে, থাকবে। সরকারি তোলারাম কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর বেলা রানী সিংহের সভাপতিত্বে ও সরকারি তোলারাম কলেজ ও মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা সংস্থার চেয়্যারম্যান সালমা ওসমান লিপি । আরোও উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী শওকত আলী, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাজী ইয়াসিন মিয়া, তোলারাম কলেজ শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জীবন কৃষ্ণ মোদক, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রধান প্রফেসর নজমুল হুদা, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ্ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল আলী, মহানগর কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান লিটন, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রফেসর শিরীন বেগম, মহানগরের সভানেত্রী ইসরাত জাহান স্মৃতি, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আজিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক রাফেল প্রধান প্রমুখ।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *